হোম অন্যান্যলিড নিউজ বিবাহিত রিজভী আহম্মেদ নেতৃত্বে অছাত্র ও বিবাহিতদের কবলে পাটকেলঘাটা থানা ছাত্রদল

বিবাহিত রিজভী আহম্মেদ নেতৃত্বে অছাত্র ও বিবাহিতদের কবলে পাটকেলঘাটা থানা ছাত্রদল

কর্তৃক Editor
০ মন্তব্য 527 ভিউজ

স্টাফ রিপোর্টার:

পাটকেলঘাটা থানা ছাত্রদলের আহবায়ক রিজভীর বিরুদ্ধে তথ্য গোপন ও ক্ষমতার অপব্যবহার করে কমিটি গঠনে সীমাহীন অনিয়ম-দুর্নীতির অভিযোগ উঠেছে।

জানা গেছে পাটকেলঘাটা থানা ছাত্রদলের আহবায়ক, রিজভী আহম্মেদ বিরুদ্ধে বিয়ের তথ্য গোপন করে কালো টাকার বিনিময় পাটকেলঘাটা থানা ছাত্রদলের আহবায়ক হয়েছে। ইউনিয়ন কমিটি গঠনের সীমাহীন অভিযোগ দুর্নীতি ক্ষমতার, অপব্যবহার অভিযোগে গোটা থানা এলাকার ছাত্রদলের নেতাকর্মীদের মধ্যে দারুন ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে।

অনুসন্ধানে জানা গেছে ৩নং সুরুলিয়া ইউনিয়ন নবনির্বাচিত সভাপতি মো: আলামিন হোসেন (শিমুল) বিবাহিত স্ত্রীর নাম : সুমাইয়া খাতুন তাদের একটি ৬ বছরের সন্তান থাকা সত্ত্বেও তথ্য গোপন রেখে কালো টাকার বিনিময় কমিটি দিয়েছে।

সরুলিয়া ইউনিয়ন নবনির্বাচিত সাংগঠনিক সম্পাদক মো: হাসান যার শিক্ষাগত যোগ্যতা পঞ্চম শ্রেণি। কিন্তু রিজভী আহম্মেদ টাকার বিনিময় তাকে একটি জাল সার্টিফিকেট তৈরি করে দিয়া কমিটিতে স্থান দিয়েছে।

অভিযোগ রয়েছে ৪ নং কুমিরা ইউনিয়ন নবনির্বাচিত সাধারণ সম্পাদক শেখ জাকারিয়া মাসুদ মিঠু নামে জাকারিয়া মাসুদ মিঠু পাটকেলঘাটা থানা ছাত্রদলের আহবায়ক কমিটির ৭ নম্বর যুগ্ন আহবায়ক। ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় সংসদের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী কোন ছাত্রনেতা একাধিক পদে থাকতে পারবে না।

কিন্তু রিজভী আহম্মেদ কোনে এক অদৃশ্য ক্ষমতার প্রভাবে ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় সংসদের নিয়ম অমান্য করে নিজের ইচ্ছা স্বাধীন ভাবে ইউনিয়ন ছাত্রদলের কমিটি গঠন করেছে।

দুর্নীতি পরায়ন আহবায়ক রিজভীর বিরুদ্ধে তথ্য গোপন করে কমিটিতে আশায় রিজভীর অব্যাহতির জন্য পাটকেলঘাটা থানা ছাত্রদলের যুগ্ন আহবায়ক ও সদস্য বৃন্দ বিভাগীয় টিম ও কেন্দ্রীয় সংসদের নিকট একটি লিখিত অভিযোগ জানান। ইউনিয়ন ও উপজেলা বিএনপির সকল অঙ্গসংগঠনের একটি লিখিত প্রত্যয়ন পত্র প্রদান করেন।

অভিযোগ সত্যতা যাচাইয়ের জন্য বিভাগীয় টিম ৩ সদস্য বিশিষ্ট একটি তদন্ত কমিটি গঠন করেন। তদন্ত কমিটি এলাকার সাধারণ মানুষ ও গন্যমান্য একাধিক ব্যক্তিবর্গ কাছে এসে সরোজমিনে গোপনে তদন্ত করেন এবং বিবাহের সত্যতা প্রমাণ পায়।

তিন সদস্যের তদন্ত টিম রিজভী আহম্মেদ কমিটি হওয়ার আগে বিয়ে করেন সত্যতার প্রমাণ পান এবং বিভাগীয় টিমের কাছে প্রেরণ করা সকল ডকুমেন্ট এর সত্যতা পায়।
এই মর্মে একটি লিখিত স্বাক্ষরিত তদন্ত প্রতিবেদন বিভাগীয় টিম এবং কেন্দ্রীয় সংসদের নিকট প্রেরণ করেন। কিন্তু অভিযোগ প্রমাণিত হওয়া সত্বেও রিজভী আহম্মেদ কে অব্যাহতি না দিয়ে অদৃশ্য ক্ষমতার বলে রিজভীকে থানা ছাত্রদলের আহ্বায়ক পদে বহাল রেখে ইউনিয়ন ছাত্রদলের কমিটি গঠন করা হয়েছে।

তদন্ত প্রতিবেদনে অভিযোগ সত্যতা প্রমাণ হওয়া সত্বেও কোনো ব্যবস্থা গ্রহণ না করে বিষয়টি ধামাচাপা দেওয়ার জন্য আপ্রাণ চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে।

কেন্দ্র সংসদ কর্তৃক দায়িত্বপ্রাপ্ত টিম প্রধান মিজানুর রহমান শরীফ, রিজভী আহম্মেদ বিবাহিত সত্যতা প্রমাণ হওয়া সত্ত্বেও এখনো পর্যন্ত কোনো ব্যবস্থা গ্রহণ করি নাই

পাটকেলঘাটা থানা ছাত্রদলের সিনিয়র যুগ্ন আহবায়ক আব্দুস সালাম বলেন, কেন্দ্রীয় সংসদ কর্তৃক দায়িত্বপ্রাপ্ত ছাত্রনেতা মিজানুর রহমান শরীফ উপস্থিতিতে রিজভী আহমেদ বিবাহিত প্রাথমিকভাবে যখন অভিযোগ করেছিলাম। সেটা আমলে না নিয়ে টিম প্রধান ও জেলা ছাত্রদলের বিভিন্ন ইউনিট নেতাকর্মীদের সামনে। জেলা ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক মমতাজুল ইসলাম (চন্দন) আমাকে চরম ভাবে অপমান করেন। এ সম্পর্কে জেলায় সমস্ত নেতাকর্মী অবগত আছেন।
সাতক্ষীরা জেলা ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক মমতাজুল ইসলাম (চন্দন) এর একমাত্র বোন রিজভীর পাশের গ্রামে বিয়ে দেওয়ার সুবাদে রিজভী সঙ্গে ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক রয়েছে । নিজের ক্ষমতা বলে রিজভী আহম্মেদ কে পাটকেলঘাটা থানা ছাত্রদলের আহবায়ক করেন।

অনুসন্ধান করে জানা যায় পাটকেলঘাটা থানা খলিষখালী ইউনিয়ন গনেশপুর গ্রামে এস এম শহিদুল ইসলামের মেয়ে সূচনা ইসলাম (২৫) এর সাথে নোটারি পাবলিক খুলনার, অ্যাডভোকেট এমদাদুল হক ও হাবিবুর রহমান এর যৌথ স্বাক্ষরের বিগত ২০২০ সালের ২৪ শে জুন বিবাহ হয়। যার রেজিস্ট্রেশন নাম্বার ১৮৭৮,

কুমিরা ইউনিয়ন বিএনপির সভাপতি আব্দুল মালেক বলেন বিএনপি’র সকল অঙ্গসংগঠন সবার সম্মতিক্রমে যে সমস্ত ছাত্রনেতাদের নাম লিখিতভাবে প্রস্তাব করেছিলাম তাদেরকে সদস্য পর্যন্ত রাখা হয়নি। বিবাহিত রিজভী আহম্মেদ মনগড়া কমিটি গঠন করেছে যা অত্যন্ত দুঃখজনক আমরা এ কমিটিকে প্রত্যাখ্যান করেছি।

সুরুলিয়া ইউনিয়ন বিএনপির সাধারণ সম্পাদক মো: রকিব সরদার বলেন আমাদের রাজনীতি বয়সে আমরা এমন কমিটি দেখি নাই। যাদেরকে কমিটির দেওয়া হয়েছে তারা অছাত্র বিবাহিত এবং আমরা তাদেরকে চিনি না। অবিলম্বে এই কমিটিকে স্থগিত ঘোষণা করে পুনরায় ত্যাগীদের মূল্যায়ন করে কমিটি ঘোষণা করা হোক।

তালা উপজেলা কৃষক দলের সদস্য সচিব মামুনুর রহমান বলেন আব্দুল্লাহ আল মামুন কে সরুলিয়া ইউনিয়নের সভাপতি নাম প্রস্তাব করেছিলাম কিন্তু তাকে সদস্য পর্যন্ত রাখা হয়নি। আমরা এ কমিটিকে অবাঞ্চিত ঘোষণা করেছি।

সদ্যবিদায়ী তালা উপজেলা যুবদলের সভাপতি হাফিজুর রহমান হাফিজ বলেন, নিজেদের ক্ষমতাকে পাকাপোক্ত করার জন্য যারা প্রকৃত ত্যাগী তাদেরকে কমিটি না দিয়ে প্রতিটা ইউনিয়ন কমিটি কালো টাকা বিনিময় ত্যাগীদের বঞ্চিত করেছে। ছাত্রদলের অতীতের সুনামকে নষ্ট করেছে।

তার এমন অনিয়ম-দুর্নীতি করায় কেন্দ্রীয় ছাত্রদল সংসদ এর নিকট এলাকার শত শত ছাত্রনেতারা তার বহিষ্কার দাবি জানাচ্ছে। বিষয়টি নিয়ে অভিযুক্ত রিজভী আহম্মের সঙ্গে কথা বললে তিনি জানান আমি সব সময় দলের ত্যাগী ও নির্যাতিত পাশে দাঁড়িয়েছি। আমার বিরুদ্ধে কিছু লোক পদ না পেয়ে মিথ্যা বানোয়াট কথা বলে বেড়াচ্ছে।

সম্পর্কিত পোস্ট

মতামত দিন