হোম খুলনাসাতক্ষীরা সুশান্তের উপর আস্থা সদর উপজেলাবাসির

সুশান্তের উপর আস্থা সদর উপজেলাবাসির

কর্তৃক Editor
০ মন্তব্য 16 ভিউজ

নিজস্ব প্রতিনিধি:

সাতক্ষীরা সদর উপজেলা পরিষদের নির্বাচন আগামী বুধবার ২৯ মে ২০২৪ অনুষ্ঠিত হবে। নির্বাচনের বাকি আছে আর মাত্র একদিন। এবার নির্বাচনে শেষ পর্যায়ে ভোটারেরা চুলচেরা বিশ্লেষণ করে পছন্দের প্রার্থীকে ভোট দিবেন, এমনটি জানিয়েছে ভোটারেরা।

সূত্র জানায়, আগামী ২৯ মে ২৪ বুধবার সাতক্ষীরা সদর উপজেলা পরিষদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।

এবার নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন স্বাধীনতা শিক্ষক পরিষদ সাতক্ষীরা জেলা শাখা সভাপতি, উপজেলা আওয়ামী লীগের নির্বাহী সদস্য ও আনারস প্রতীকের প্রার্থী প্রভাষক সুশান্ত কুমার মন্ডল, জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য মোটরসাইকেল প্রতিকের এস এম শওকত হোসেন, উপজেলা আওয়ামী লীগের নেতা চিংড়ি মাছ প্রতিকের গোলাম মোর্শেদ, ঘোড়া প্রতীকের প্রার্থী এড. তামিম আহমেদ এবং লাঙ্গল প্রতীক এর প্রার্থী মশিউর রহমান।

এদিকে, পুরুষ ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে দুইজন প্রার্থী বিএনপির ঘরনার শামস্ ইসতিয়াক শোভন ও আওয়ামী লীগের কোহিনুর ইসলাম নির্বাচনের আগেই বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতা নির্বাচিত হয়েছে।

জেলা আওয়ামী লীগের দুইজন শীর্ষ নেতার মধ্যস্থতায় নির্বাচনের আগে কোটি টাকা বাণিজ্যের মাধ্যমে বিএনপি শামস্ ইসতিয়াক শোভন হাতে তুলে দেন।

এবার নির্বাচনে দু’জন প্রার্থী এস এম শওকত হোসেন ও গোলাম মোরশেদ এর বিরুদ্ধে দলের বিরুদ্ধে সিদ্ধান্ত নিয়ে নৌকা প্রতীকের বিরোধী হয়ে বিদ্রোহী প্রার্থী হয়ে নির্বাচন করা অভিযোগ রয়েছে। এই অভিযোগের কারণে দল থেকেও বহিষ্কার হয়েছিলেন।

অপর প্রার্থী বিগত উপজেলা পরিষদ নির্বাচন এড. তামিম আহমেদ ভাইস চেয়ারম্যান পদে নির্বাচন করে হেরে যান।

জাতীয় পার্টির প্রার্থী মশিউর রহমান। বিগত জাতীয় সংসদ নির্বাচনে জাতীয় পার্টির প্রার্থী কে নির্বাচিত করার ফলে সাধারণ মানুষ এবার উপজেলা নির্বাচনে ভিন্ন কিছু খুঁজছে।

এদিকে, নাম প্রকাশ না করার শর্তে একাধিক আওয়ামী লীগ নেতা জানান, সাতক্ষীরা সদর উপজেলার রাজনীতি এখন টালমাটাল অবস্থা। বিগত সংসদ নির্বাচনে আমাদের মাধ্যমে জাতীয় পার্টি প্রার্থী সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। এবার উপজেলা নির্বাচনে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হওয়ার আগেই জেলা আওয়ামী লীগের কতিপয় নেতার সহযোগিতায় পুরুষ ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থীদের মনোনয়ন পত্র প্রত্যাহারের মাধ্যমে কোটি টাকার মিশন নিয়ে বিএনপি ঘরনার শামস্ ইসতিয়াক শোভন এর হাতে তুলে দেন উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যানের চেয়ার।

এবার উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে কতিপয় আওয়ামী লীগ নেতা কিছু প্রার্থীদের পক্ষ নিয়েছে নির্বাচনী মাঠ দাপিয়ে বেড়াচ্ছেন। কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের নির্দেশনাকে বৃদ্ধাঙ্গুলী দেখিয়ে দু’এক জন নেতা সাতক্ষীরা সদর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে তাদের কর্মকাণ্ডে সাধারণ নেতৃবৃন্দ হতবাক।

শহরে সুলতানপুরের বাসিন্দা আলামিন ও পলাশপোলের মাসুদ হোসেন জানান, এবার নির্বাচন পাঁচজন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছে। ইতিপূর্বে কয়েকজন প্রার্থী কে আমরা পরীক্ষা করেছি। ভোটও দিয়েছি। কাঙ্খিত কোন ফল পাইনি। জনগণের সাথে তাদের সম্পৃক্ততা ছিল না। এবার আমরা নতুন কিছুর খোঁজে আছি।

থানাঘাটা এলাকার সংবাদকর্মী রেজাউল ইসলাম জানান, নেতাদের কথায় এখন আর ভোট হয় না। সাধারণ মানুষ ব্যালটের মাধ্যমে জবাব দেবে। আমরা ভদ্র, শিক্ষিত মানুষ খুঁজছি যার মাধ্যমে সাতক্ষীরা সদর উপজেলা চার লাখ ভোটার ও ৮ লাখ মানুষের সমান অধিকার নিশ্চিত হবে। নেতারা বিক্রি হয় আর কর্মীরা ঠকে। দলীয় প্রতীক তুলে দিয়ে সাধারণ কর্মীদের ভোটে দাঁড়ানোর সুযোগ করে দেওয়ায় আওয়ামী লীগের সভাপতি প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনাকে ধন্যবাদ জানাই।

শহরের মাঠপাড়া এলাকার সাঈদ জানান, সাতক্ষীরা সদর উপজেলাকে গণমানুষের উপজেলা তে রুপান্তরিত করার জন্য আমরা সর্বস্তরের মানুষের নেতা সুশান্ত কুমার ।

সম্পর্কিত পোস্ট

মতামত দিন