হোম আন্তর্জাতিক পাকিস্তানের নির্বাচন: আসন ছেড়ে দিয়ে প্রার্থী বললেন, ‘আমাকে কারচুপি করে জেতানো হয়েছে’

পাকিস্তানের নির্বাচন: আসন ছেড়ে দিয়ে প্রার্থী বললেন, ‘আমাকে কারচুপি করে জেতানো হয়েছে’

কর্তৃক Editor
০ মন্তব্য 37 ভিউজ

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:

পাকিস্তানের সাধারণ নির্বাচনে সিন্ধের প্রাদেশিক পরিষদের পিএস-১২৯ আসনে জেতার পরও আসন ছেড়ে দিয়েছেন জামায়াত-ই-ইসলামি (জেআই) নেতা হাফিজ নাঈম-উর-রহমান। সোমবার (১২ ফেব্রুয়ারি) এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ ঘোষণা দেন।

গত বৃহস্পতিবারের (৮ ফেব্রুয়ারি) সাধারণ নির্বাচনে করাচি সেন্ট্রাল থেকে সিন্ধ অ্যাসেম্বলির পিএস-১২৯ আসন থেকে বিজয়ী ঘোষণা করা হয় হাফিজ নাঈম-উর-রহমানকে। তবে ফলাফল ঘোষণার পর সোমবার এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি দাবি করেন, আসনটিতে তার প্রতিদ্বন্দ্বী পিটিআই সমর্থিত স্বতন্ত্র প্রার্থী জিতেছেন। তিনি কোনো ‘দাতব্য’ আসন চান না। আর এ আসনে যার অধিকার আছে তাকেই দেয়া উচিত।

সংবাদ সম্মেলনে হাফিজ বলেন, তিনি আসনটি ফিরিয়ে দিচ্ছেন। তবে কারচুপির কারণে তার দলের হারানো সব আসন পুনরুদ্ধার করতে আইনি ও রাজনৈতিক লড়াই চালিয়ে যাবেন।

তিনি আরও বলেন, মিথ্যা ম্যান্ডেট (জনসমর্থন) দিয়ে জনগণের মন পরিবর্তন করা যাবে না।

হাফিজ আরও বলেন, পিটিআই সমর্থিত প্রার্থী বেশি ভোট পেয়েছেন। তাই তিনি পিটিআইয়ের জয় ও ম্যান্ডেট মেনে নিচ্ছেন।’

জেআইর এ নেতা আরও ঘোষণা দেন, তিনি এই আসনে এমপিএ হিসেবে শপথ নেবেন না।

বৃহস্পতিবার (৮ ফেব্রুয়ারি) পাকিস্তানের জাতীয় পরিষদ নির্বাচনের ভোট গ্রহণ হয়। নজিরবিহীন বিলম্বের পর রোববার ২৬৪টি আসনে ফলাফল ঘোষণা করা হয়। এরমধ্যে সবচেয়ে বেশি ১০১ আসনে জয় পেয়েছেন স্বতন্ত্র প্রার্থীরা।

পাকিস্তানের সংবাদমাধ্যম ডনের দেয়া তথ্য অনুযায়ী, নির্বাচনে জয়ী স্বতন্ত্র প্রার্থীদের ৯৩ জনই সাবেক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের দল পিটিআই-সমর্থিত। এরপরই পিএমএল-এন ৭৫ আসনে, পিপিপি ৫৪ ও এমকিউএম ১৭ আসনে জয়ী হয়েছে। এছাড়া অন্যান্য দল পেয়েছে ১৭টি আসন। জাতীয় পরিষদে সরকার গঠনের জন্য ১৩৪টি আসন প্রয়োজন।

সম্পর্কিত পোস্ট

মতামত দিন