হোম অর্থ ও বাণিজ্য আগামীতে বাণিজ্য মেলা হবে দ্বিতলবিশিষ্ট, থাকবে হস্তশিল্পের আলাদা প্যাভিলিয়ন

আগামীতে বাণিজ্য মেলা হবে দ্বিতলবিশিষ্ট, থাকবে হস্তশিল্পের আলাদা প্যাভিলিয়ন

কর্তৃক Editor
০ মন্তব্য 65 ভিউজ

বাণিজ্য ডেস্ক:

আগামী বছর থেকে ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলার আয়োজন দ্বিতল বিশিষ্ট হবে বলে জানিয়েছেন বাণিজ্য প্রতিমন্ত্রী আহসানুল ইসলাম টিটু। পাশপাশি হস্তশিল্পের জন্য আলাদা প্যাভিলিয়ন থাকবে।

মঙ্গলবার (২০ ফেব্রুয়ারি) পূর্বাচলে বঙ্গবন্ধু বাংলাদেশ- চায়না ফ্রেন্ডশিপ এক্সিবিশন সেন্টারে ‘২৮ তম ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলা- ২০২৪’ এর সমাপনী অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন বাণিজ্য প্রতিমন্ত্রী।

তিনি বলেন, আগামী বছর আমরা বাণিজ্য মেলা দ্বিতলবিশিষ্টভাবে আয়োজন করবো। মেলা প্রাঙ্গনের নীচ তলায় স্টল থাকবে। আর দোতলায় কনফারেন্স হলে ব্যবসায়ীদের মধ্যে যোগাযোগ ও দক্ষতা বাড়ানোর জন্য নানা ধরনের বিজনেস কনফারেন্স বা সেমিনারের ব্যবস্থা করা হবে। এভাবে বাণিজ্য মেলায় এক প্রকার ডাইভারসিফিকেশনের ব্যবস্থা করা হবে।

মেলার উদ্বোধনী দিনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার মেলা প্রাঙ্গন ঘুরে দেখার কথা উল্লেখ করে বাণিজ্য প্রতিমন্ত্রী বলেন, প্রধানমন্ত্রী নিজে মেলা প্রাঙ্গন পরিদর্শন করেছেন এবং বিভিন্ন পণ্য কিনেছেন। যা আমাদেরকে অনেক বেশি অনুপ্রাণিত করে। প্রথম মন্ত্রিসভা বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী আমাদেরকে বলেছিলেন, বাংলাদেশ যেমন কূটনীতিতে এগিয়ে আছে; একইভাবে বাণিজ্য কূটনীতিও বাড়াতে হবে।

আগামীতে বাণিজ্যমেলায় হস্তশিল্পকে নিয়ে বিশেষ পরিকল্পনা গ্রহণ করা হবে জানিয়ে বাণিজ্য প্রতিমন্ত্রী বলেন, আগামী বাণিজ্য মেলায় হস্তশিল্পের জন্য একটি আলাদা বিশাল আকৃতির প্যাভিলিয়ন করা হবে।

উল্লেখ্য, প্রতিবছর ১ জানুয়ারি থেকে বাণিজ্যমেলা শুরু হলেও এবার নির্বাচনের কারণে পিছিয়ে যায় মেলা। গত ২১ জানুয়ারি মাসব্যাপী আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলার উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। দেশীয় পণ্যের প্রচার, প্রসার, বিপণন ও উৎপাদনে সহায়তা প্রদানের লক্ষ্যে বাণিজ্য মন্ত্রণালয় ও রফতানি উন্নয়ন ব্যুরোর (ইপিবি) যৌথ উদ্যোগে ১৯৯৫ সাল থেকে ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলা আয়োজন করা হচ্ছে। যা দেশের রফতানি প্রবৃদ্ধিতে অবদান রাখার পাশাপাশি সামষ্টিক অর্থনীতিতে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রেখে চলেছে।

এছাড়া দর্শনার্থীদের বিনোদন, ক্রয়-বিক্রয় ও বঙ্গবন্ধু বাংলাদেশ-চায়না ফ্রেন্ডশিপ এক্সিবিশন সেন্টারের নান্দনিক স্থাপত্যশৈলীর আকর্ষণ ডিআইটিএফকে একটি জাতীয় অনুষ্ঠান হিসেবে প্রসিদ্ধ করেছে।

সম্পর্কিত পোস্ট

মতামত দিন